Home > Songs > বিচিত্র

বিচিত্র

আমায় ক্ষমো হেনৃত্যের তালে তালেনাই ভয়, নাই
প্রলয়-নাচন নাচলে যখনদুই হাতে--কালের মন্দিরামম চিত্ত নিতি
আমার ঘুর লেগেছে--কমলবনের মধুপরাজি, এসোএসো গো নূতন
মধুর মধুর ধ্বনিওঠো রে মলিনমুখআমার নাইবা হল
যখন পড়বে নাগ্রামছাড়া ওই রাঙাএই তো ভালো
রাঙিয়ে দিয়ে যাওআমার অন্ধপ্রদীপ শূন্য-পানেকেন যে মন
আমারে ডাক দিলহাটের ধুলা সয়আমি একলা চলেছি
স্বপন-পারের ডাক শুনেছি,আপন-মনে গোপন কোণেসকাল-বেলার কুঁড়ি আমার
পাগল যে তুইখেলাঘর বাঁধতে লেগেছিগোপন প্রাণে একলা
আমার জীর্ণ পাতাএ শুধু অলসযে আমি ওই
দিনগুলি মোর সোনারতরীতে পা দিইআমি ফিরব না
আয় আয় রেকোন্ সুদূর হতেআকাশ হতে আকাশ-পথে
আলোক-চোরা লুকিয়ে এলজাগ' আলসশয়নবিলগ্নতোমার আসন শূন্য
মোরা সত্যের 'পরেআমাদের শান্তিনিকেতননা গো, এই
জীবন আমার চলছেকী পাই নিআমি সব নিতে
আলো আমার, আলোওরে ওরে ওরেহারে রে রে
আনন্দেরই সাগর হতেখরবায়ু বয় বেগেযুদ্ধ যখন বাধিল
গগনে গগনে ধায়ভাঙো বাঁধ ভেঙেওই সাগরের ঢেউয়ে
দুয়ার মোর পথপাশেনাহয় তোমার যাসে কোন্ বনের
তোমার হল শুরুএমনি ক'রেই যায়আমারে বাঁধবি তোরা
ফিরে ফিরে আমায়ফুরোলো ফুরোলো এবারওরে শিকল, তোমায়
আমাকে যে বাঁধবেআমি চঞ্চল হেওরে সাবধানী পথিক,
তরী আমার হঠাৎআমি কেবলই স্বপনশুধু যাওয়া আসা,
ওগো, তোরা কেতোমাদের দান যশেরদূর রজনীর স্বপন
ওরে মাঝি, ওরেচোখ যে ওদেরকৃষ্ণকলি আমি তারেই
তুমি কি কেবলইআজ তারায় তারায়ওরে প্রজাপতি, মায়া
নমো যন্ত্র, নমো--ওগো নদী, আপনপ্রাঙ্গণে মোর শিরীষশাখায়
হে আকাশবিহারী-নীরদবাহনযে কেবল পালিয়েও কি এল
দূরদেশী সেই রাখালবাজে গুরু গুরুও জোনাকী, কী
হ্যাদে গো নন্দরানী,আঁধারের লীলা আকাশেদেখা না-দেখায় মেশা হে
তুমি উষার সোনারআকাশ, তোমায় কোন্আধেক ঘুমে নয়ন
পাখি বলে, 'চাঁপা,মাটির বুকের মাঝেআমি সন্ধ্যাদীপের শিখা,
মাটির প্রদীপখানি আছেআমি তোমারি মাটিরযাবই আমি যাবই
আমরা নূতন যৌবনেরইতিমিরময় নিবিড় নিশাহায় হায় রে
সুন্দরের বন্ধন নিষ্ঠুরেরআকাশে তোর তেমনিকোথায় ফিরিস পরম
চাহিয়া দেখো রসেররয় যে কাঙালসে কোন্ পাগল
পরবাসী, চলে এসোছিল যে পরানেরযে কাঁদনে হিয়া
আমরা লক্ষ্মীছাড়ার দলওগো, তোমরা সবাইভালো মানুষ নই রে
আমাদের ভয় কাহারেআমাদের পাকবে নাপায়ে পড়ি শোনো
ও ভাই কানাই,কাঁটাবনবিহারিণী সুর-কানা দেবীআমরা না-গান-গাওয়ার দল
মোদের কিছু নাইএবার যমের দুয়োরহায় হায় হায়
ওগো ভাগ্যদেবী পিতামহীওর ভাব দেখেআমরা খুঁজি খেলার
মোদের যেমন খেলাসব কাজে হাতকঠিন লোহা কঠিন
আমরা চাষ করিতোমরা হাসিয়া বহিয়াওগো পুরবাসী,
আমার যাবার সময়ওরে, যেতে হবে,আমিই শুধু রইনু
সারা বরষ দেখিযাহা পাও তাইমেঘেরা চলে চলে
আমি শ্রাবণ-আকাশে ওইসন্ন্যাসী যে জাগিল