Home > Verses > গীতালি

গীতালি

আশীর্বাদদুঃখের বরষায়তুমি আড়াল পেলে কেমনে
বাঁধা দিলে বাধবে লড়াইআমি হৃদয়েতে পথ কেটেছিআলো যে
ও নিঠুর, আরো কি বাণসুখে আমায় রাখবে কেনওগো আমার প্রাণের ঠাকুর
আঘাত করে নিলে জিনেঘুম কেন নেই তোরি চোখেআমি যে আর সইতে পারি নে
পথ চেয়ে যে কেটে গেলআবার শ্রাবণ হয়ে এলে ফিরেআমার সকল রসের ধারা
এই শরৎ-আলোর কমল-বনেতোমার মোহন রূপেযখন তুমি বাঁধছিলে তার
আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণেহৃদয় আমার প্রকাশ হলএক হাতে ওর কৃপাণ আছে
পথ দিয়ে কে যায় গো চলেএই যে কালো মাটির বাসাযে থাকে থাক্‌-না দ্বারে
তোমার খোলা হাওয়া লাগিয়ে পালেশুধু তোমার বাণী নয় গোশরৎ তোমার অরুণ আলোর অঞ্জলি
ও আমার মন যখন জাগলি না রেমোর মরণে তোমার হবে জয়এবার আমায় ডাকলে দূরে
নাই কি রে তীরনাই বা ডাকনা বাঁচাবে আমায় যদি
যেতে যেতে একলা পথেমালা হতে খসে-পড়াকোন্‌ বরতা পাঠালে মোর পরানে
যেতে যেতে চায় না যেতেসেই তো আমি চাইশেষ নাহি যে
না রে, তোদের ফিরতে দেব না রেমনকে হেথায় বসিয়ে রাখিস নেএতটুকু আঁধার যদি
কাঁচা ধানের ক্ষেতে যেমনদুঃখ যদি না পাবে তোনা রে, না রে, হবে না তোর স্বর্
তোমার এই মাধুরী ছাপিয়ে আকাশ ঝরনা গো, এই যে ধুলা আমার না এএই কথাটা ধরে রাখিস
লক্ষ্মী যখন আসবে তখনওই অমল হাতে রজনী প্রাতেমোর হৃদয়ের গোপন বিজন ঘরে
খুশি হ তুই আপন মনেসহজ হবি সহজ হবিওরে ভীরু তোমার হাতে
চোখে দেখিস, প্রাণে কানাঅগ্নিবীণা বাজাও তুমিআলো যে আজ গান করে মোর প্রাণে গ
তোমার দুয়ার খোলার ধ্বনিপ্রেমের প্রাণে সইবে কেমন করেক্লান্তি আমার ক্ষমা করো প্রভু
আমার আর হবে না দেরিওই-যে সন্ধ্যা খুলিয়া ফেলিল তারদুঃখ এ নয়, সুখ নহে গো
এদের পানে তাকাই আমিহিসাব আমার মিলবে না তা জানিমেঘ বলেছে ‘যাব যাব’
কাণ্ডারী গো,যদি এবারফুল তো আমার ফুরিয়ে গেছেতোমার ভুবন মর্মে আমার লাগে
তোমার কাছে এ বর মাগিআপন হতে বাহির হয়েএই আবরণ ক্ষয় হবে গো
ওগো আমার হৃদয়বাসীপুষ্প দিয়ে মার যারেআমার সুরের সাধন রইল পড়ে
কূল থেকে মোর গানের তরীঘরের থেকে এনেছিলেমসন্ধ্যা হল, একলা আছি ব'লে
বিশ্বজোড়া ফাঁদ পেতেছতোমায় সৃষ্টি করব আমিসারা জীবন দিল আলো
সরিয়ে দিয়ে আমার ঘুমেরব্যথার বেশে এল আমার দ্বারেআমি পথিক, পথ আমারি সাথি
বৃন্ত হতে ছিন্ন করি শুভ্র কমলগবাজিয়েছিলে বীণা তোমারআবার যদি ইচ্ছা কর
অচেনাকে ভয় কী আমার ওরেযে দিল ঝাঁপ ভবসাগর-মাঝখানেসন্ধ্যাতারা যে ফুল দিল
এ দিন আজি কোন্‌ ঘরে গোতোমার কাছে চাই নে আমিএখানে তো বাঁধা পথের
যা দেবে তা দেবে তুমি আপন হাতেপথে পথেই বাসা বাঁধিপান্থ তুমি, পান্থজনের সখা হে
জীবন আমার যে অমৃতসুখের মাঝে তোমায় দেখেছিপথের সাথি, নমি বারম্বার
অন্ধকারের উৎস হতে উৎসারিত আলোগতি আমার এসেভেঙেছে দুয়ার, এসেছ জ্যোতির্ময়
তোমায় ছেড়ে দূরে চলারযখন তোমায় আঘাত করিকেমন করে তড়িৎ-আলোয়
এই নিমেষে গণনাহীনযাস নে কোথাও ধেয়েমুদিত আলোর কমল-কলিকাটিরে
এই তীর্থ-দেবতার ধরণীর মন্দির-পকেমন করে এমন বাধা ক্ষয় হবেজাগো নির্মল নেত্রে
প্রভু আমার, প্রিয় আমার, পরমধন তব গানের সুরেআজি নির্ভয়নিদ্রিত ভুবনে
আমি অধম অবিশ্বাসীযদি আমায় তুমি বাঁচাও তবেবলো, আমার সনে তোমার কী শত্রুতা
দুঃখ যে তোর নয় রে চিরন্তনআমার বোঝা এতই করি ভারী