দুঃখের বরষায়

           চক্ষের জল যেই

                          নামল

বক্ষের দরজায়

           বন্ধুর রথ সেই

                          থামল।

মিলনের পাত্রটি

           পূর্ণ যে বিচ্ছেদে

                          বেদনায়;

অর্পিনু হাতে তাঁর,

           খেদ নাই, আর মোর

                          খেদ নাই।

বহুদিন-বঞ্চিত

           অন্তরে সঞ্চিত

                          কী আশা,

চক্ষের নিমেষেই

           মিটল সে পরশের

                          তিয়াষা।

এতদিনে জানলেম

          যে কাঁদন কাঁদলেম

                    সে কাহার জন্য।

ধন্য এ জাগরণ,

          ধন্য এ ক্রন্দন,

                    ধন্য রে ধন্য।

 

 

  শান্তিনিকেতন, শ্রাবণ, ১৩২১