আমি          হৃদয়েতে পথ কেটেছি,

                     সেথায় চরণ পড়ে,

তোমার            সেথায় চরণ পড়ে।

         তাই তো আমার সকল পরান

                 কাঁপছে ব্যথার ভরে গো

                               কাঁপছে থরথরে।

  ব্যথা-পথের পথিক তুমি,

  চরণ চলে ব্যথা চুমি,

  কাঁদন দিয়ে সাধন আমার

                     চিরদিনের তরে গো

                               চিরজীবন ধ'রে।

  নয়নজলের বন্যা দেখে

                    ভয় করি নে আর,

    আমি           ভয় করি নে আর।

     মরণ-টানে টেনে আমায়

                   করিয়ে দেবে পার,

    আমি           তরব পারাবার!

     ঝড়ের হাওয়া আকুল গানে

   বইছে আজি তোমার পানে,

   ডুবিয়ে তরী ঝাঁপিয়ে পড়ি

             ঠেকব চরণ-'পরে,

             আমি           বাঁচব চরণ ধ'রে।

 

 

  কলিকাতা, ৬ ভাদ্র, ১৩২১