১০০    


গতি আমার এসে

ঠেকে যেথায় শেষে

            অশেষ সেথা খোলে আপন দ্বার।

যেথা আমার গান

হয় গো অবসান

            সেথা গানের নীরব পারাবার।

যেথা আমার আঁখি

আঁধারে যায় ঢাকি

            অলখ-লোকের আলোক সেথা জ্বলে।

বাইরে কুসুম ফুটে

ধুলায় পড়ে টুটে,

            অন্তরে তো অমৃত-ফল ফলে।

কর্ম বৃহৎ হয়ে

চলে যখন বয়ে

           তখন সে পায় বৃহৎ অবকাশ।

যখন আমার আমি

ফুরায়ে যায় থামি

           তখন আমার তোমাতে প্রকাশ।

 

 

  এলাহাবাদ, ২৯ আশ্বিন, ১৩২১