৪৬


মাতৃস্নেহবিগলিত স্তন্যক্ষীররস

পান করি হাসে শিশু আনন্দে অলস--

তেমনি বিহ্বল হর্ষে ভাবরসরাশি

কৈশোরে করিছি পান; বাজায়েছি বাঁশি

প্রমত্ত পঞ্চম সুরে, প্রকৃতির বুকে

লালনললিতচিত্ত শিশুসম সুখে

ছিনু শুয়ে; প্রভাত-শর্বরী-সন্ধ্যা-বধূ

নানা পাত্রে আনি দিত নানাবর্ণ মধু

পুষ্পগন্ধে মাখা।

     আজি সেই ভাবাবেশ

সেই বিহ্বলতা যদি হয়ে থাকে শেষ,

প্রকৃতির স্পর্শমোহ গিয়ে থাকে দূরে--

কোনো দঃখ নাহি। পল্লী হতে রাজপুরে

এবার এনেছ মোরে,দাও চিত্তে বল

দেখাও সত্যের মূর্তি কঠিন নির্মল।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •