ফাল্গুন, ১৩৩৪


 

জীবনমরণ


জীবনমরণের বাজায়ে খঞ্জনি

              নাচিয়া ফাল্গুন গাহিছে।

অধীরা হল ধরা মাটির বন্দিনী

              বাতাসে উড়ে যেতে চাহিছে।

আজিকে আলো ছায়া করিছে কোলাকুলি,

আজিকে এক দোলে দুজনে দোলাদুলি

              শুকানো পাতা আর মুকুলে।

আজিকে শিরীষের মুখর উপবনে

জড়িত পাশাপাশি নূতনে পুরাতনে

              চিকন শ্যামলের দুকূলে।

বিরহে টানে মিড় মিলন-বীণাতারে,

              সুখের বুকে বাজে বেদনা।

কপোত-কাকলিতে করুণা সঞ্চারে,

             কাননদেবী হল বিমনা।

আমারো প্রাণে বুঝি বহেছে ওই হাওয়া,

কিছু-বা কাছে আসা, কিছু-বা চলে যাওয়া,

             কিছু-বা স্মরি কিছু পাসরি।

যে আছে যে-বা নাই আজিকে দোঁহে মিলি

আমার ভাবনাতে ভ্রমিছে নিরিবিলি

             বাজায়ে ফাগুনের বাঁশরি।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •