আলমোড়া, ২৭ মে, ১৯৩৭


 

হঠাৎ মিলন


মনে পড়ে কবে ছিলাম একা বিজন চরে;

            তোমার নৌকা ভরা পালের ভরে

                           সুদূর পারের হতে

            কোন্‌ অবেলার এল উজান স্রোতে।

                   দ্বিধায় ছোঁওয়া তোমার মৌনীমুখে

                         কাঁপতেছিল সলজ্জ কৌতুকে

            আঁচল-আড়ে দীপের মতো একটুখানি হাসি,

                   নিবিড় সুখের বেদন দেহে উঠছিল নিশ্বাসি।

                          দুঃসহ  বিস্ময়ে

                 ছিলাম স্তব্ধ হয়ে,

            বলার মতো বলা পাই নি খুঁজে;

                 মনের সঙ্গে যুঝে

            মুখের কথার হল পরাজয়।

       তোমার তখন লাগল বুঝি ভয়,

বাঁধন-ছেঁড়া অধীরতার এমন দুঃসাহসে

                 গোপনে মন পাছে তোমায় দোষে।

       মিনতি উপেক্ষা করি ত্বরায় গেলে চলে

               "তবে আসি" এইটি শুধু ব'লে।

       তখন আমি আপন মনে যে-গান সারাদিন

                গেয়েছিলেম, তাহারি সুর রইল অন্তহীন।

                        পাথর-ঠেকা নির্ঝর সে, তারি কলস্বর

                                   দূরের থেকে পূর্ণ করে বিজন অবসর।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •