ভগ্ন মন্দির


ভাঙা দেউলের দেবতা,

তব বন্দনা রচিতে, ছিন্না

   বীণার তন্ত্রী বিরতা।

সন্ধ্যাগগনে ঘোষে না শঙ্খ

   তোমার আরতি-বারতা।

তব মন্দির স্থির গম্ভীর,

   ভাঙা দেউলের দেবতা!

 

    তব জনহীন ভবনে

থেকে থেকে আসে ব্যাকুল গন্ধ

   নববসন্তপবনে।

যে ফুলে রচেনি পূজার অর্ঘ্য,

   রাখে নি ও রাঙা চরণে,

সে ফুল ফোটার আসে সমাচার

   জনহীন ভাঙা ভবনে।

 

   পূজাহীন তব পূজারি

কোথা সারাদিন ফিরে উদাসীন

   কার প্রসাদের ভিখারি!

গোধূলিবেলায় বনের ছায়ায়

   চির-উপবাস-ভূখারি

ভাঙা মন্দিরে আসে ফিরে ফিরে

   পূজাহীন তব পূজারি।

 

   ভাঙা দেউলের দেবতা,

কত উৎসব হইল নীরব,

   কত পূজানিশা বিগতা।

কত বিজয়ায় নবীন প্রতিমা

   কত যায় কত কব তা--

শুধু চিরদিন থাকে সেবাহীন

   ভাঙা দেউলের দেবতা।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •