সিন্ধুতীরে


হেথা নাই ক্ষুদ্র কথা, তুচ্ছ কানাকানি,

ধ্বনিত হতেছে চিরদিবসের বাণী।

চিরদিবসের রবি ওঠে, অস্ত যায়,

চিরদিবসের কবি গাহিছে হেথায়।

ধরণীর চারি দিকে সীমাশূন্য গানে

সিন্ধু শত তটিনীরে করিছে আহ্বান--

হেথায় দেখিলে চেয়ে আপনার পানে

দুই চোখে জল আসে, কেঁদে ওঠে প্রাণ।

শত যুগ হেথা বসে মুখপানে চায়,

বিশাল আকাশে পাই হৃদয়ের সাড়া।

তীব্র বক্র ক্ষুদ্র হাসি পায় যদি ছাড়া

রবির কিরণে এসে মরে সে লজ্জায়।

সবারে আনিতে বুকে বুক বেড়ে যায়,

সবারে করিতে ক্ষমা আপনারে ছাড়া।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •