সন্ধ্যার বিদায়


সন্ধ্যা যায়, সন্ধ্যা ফিরে চায়,     শিথিল কবরী পড়ে খুলে--

যেতে যেতে কনক-আঁচল       বেধে যায় বকুলকাননে,

চরণের পরশরাঙিমা               রেখে যায় যমুনার কূলে--

নীরবে-বিদায়-চাওয়া চোখে,     গ্রন্থি-বাঁধা রক্তিম দুকূলে

আঁধারের ম্লানবধূ যায়           বিষাদের বাসরশয়নে।

সন্ধ্যাতারা পিছনে দাঁড়ায়ে         চেয়ে থাকে আকুল নয়নে।

যমুনা কাঁদিতে চাহে বুঝি,       কেন রে কাঁদে না কণ্ঠ তুলে--

বিস্ফারিত হৃদয় বহিয়া           চলে যায় আপনার মনে।

মাঝে মাঝে ঝাউবন হতে         গভীর নিশ্বাস ফেলে ধরা।

সপ্ত ঋষি দাঁড়াইল আসি           নন্দনের সুরতরুমূলে--

চেয়ে থাকে পশ্চিমের পথে,     ভুলে যায় আশীর্বাদ করা।

নিশীথিনী রহিল জাগিয়া           বদন ঢাকিয়া এলোচুলে।

কেহ আর কহিল না কথা,       একটিও বহিল না শ্বাস--

আপনার সমাধি-মাঝারে          নিরাশা নীরবে করে বাস।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •