ঘরে যবে ছিলে মোরে ডেকেছিলে ঘরে

তোমার করুণাপূর্ণ সুধাকণ্ঠস্বরে।

আজ তুমি বিশ্ব-মাঝে চলে গেলে যবে

বিশ্ব-মাঝে ডাকো মোরে সে করুণ রবে।

খুলি দিয়া গেলে তুমি যে গৃহদুয়ার

সে দ্বার রুধিতে কেহ কহিবে না আর।

বাহিরের রাজপথ দেখালে আমায়,

মনে রয়ে গেল তব নিঃশব্দ বিদায়।

আজি বিশ্বদেবতার চরণ-আশ্রয়ে

গৃহলক্ষ্মী দেখা দাও বিশ্বলক্ষ্মী হয়ে।

নিখিল নক্ষত্র হতে কিরণের রেখা

সীমন্তে আঁকিয়া দিক্‌ সিন্দূরের লেখা।

একান্তে বসিয়া আজি করিতেছি ধ্যান

সবার কল্যাণে হোক তোমার কল্যাণ।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •