বোলপুর, শান্তিনিকেতন, ২৯ অগ্রহায়ণ, ১৩০৯


 

১৩


তুমি মোর জীবনের মাঝে

    মিশায়েছ মৃত্যুর মাধুরী।

চিরবিদায়ের আভা দিয়া

রাঙায়ে গিয়েছ মোর হিয়া,

এঁকে গেছে সব ভাবনায়

    সূর্যাস্তের বরনচাতুরী।

জীবনের দিক্‌চক্রসীমা

লভিয়াছে অপূর্ব মহিমা,

অশ্রুধৌত হৃদয়-আকাশে

    দেখা যায় দূর স্বর্গপুরী।

তুমি মোর জীবনের মাঝে

    মিশায়েছ মৃত্যুর মাধুরী।

তুমি, ওগো কল্যাণরূপিণী,

    মরণেরে করেছ মঙ্গল।

জীবনের পরপার হতে

প্রতি ক্ষণে মর্ত্যের আলোতে

পাঠাইছ তব চিত্তখানি

    মৌনপ্রেমে সজলকোমল।

মৃত্যুর নিভৃত স্নিগ্ধ ঘরে

বসে আছ বাতায়ন-'পরে--

জ্বালায়ে রেখেছ দীপখানি

    চিরন্তন আশায় উজ্জ্বল।

তুমি ওগো কল্যাণরূপিণী,

    মরণেরে করেছ মঙ্গল।

তুমি মোর জীবন মরণ

    বাঁধিয়াছ দুটি বাহু দিয়া।

প্রাণ তব করি অনাবৃত

মৃত্যু-মাঝে মিলালে অমৃত,

মরণেরে জীবনের প্রিয়

    নিজ হাতে করিয়াছ প্রিয়া।

খুলিয়া দিয়াছ দ্বারখানি,

যবনিকা লইয়াছ টানি,

জন্মমরণের মাঝখানে

    নিস্তব্ধ রয়েছ দাঁড়াইয়া।

তুমি মোর জীবন মরণ

    বাঁধিয়াছ দুটি বাহু দিয়া।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •