বিদায়    


তোমার আমার মাঝে হাজার বৎসর

নেমে এল, মুহূর্তেই হল যুগান্তর।

        মাথায় ঘোমটা টানি

        যখনি ফিরালে মুখখানি

            কোনো কথা নাহি বলি,

            তখনি অতীতে গেলে চলি--

               যে-অতীতে অসীম বিরহে

                   ছায়াসম রহে

                 বর্তমানে যারা

               হয়েছে প্রেমের পথহারা।

            যে-পারে গিয়েছ হোথা

                   বেশি দূর নহে এখনো তা।

ছোটো নির্ঝরিণী শুধু বহে মাঝখানে,

বিদায়ের পদধ্বনি গাঁথে সে করুণ কলগানে।

              চেয়ে দেখি অনিমিখে

          তুমি চলিয়াছ কোন্‌ শিখরের দিকে;

যেন স্বপ্নে উঠিতেছ ঊর্ধ্ব-পানে,

        যেন তুমি বীণাধ্বনি, শান্ত সুরে তানে

                       চলিয়াছ মেঘলোকে।

                   আজি মোর চোখে

        কাছের মূর্তির চেয়ে দূরের মূর্তিতে তুমি বড়ো

অনেক দিনের মোর সব চিন্তা করিয়াছি জড়ো,

                   সব স্মৃতি,

        অব্যক্ত সকল প্রীতি, ব্যক্ত সব গীতি--

উৎসর্গ করিনু আজি, যাত্রী তুমি, তোমার উদ্দেশে।

            স্পর্শ যদি নাই করো যাক তবে ভেসে।

 

 

  ২৮ জুলাই, ১৯৩২