৩৮


প্রভাতে যখন শঙ্খ উঠেছিল বাজি

তোমার প্রাঙ্গনতলে, ভরি লয়ে সাজি

চলেছিল নরনারী তেয়াগিয়া ঘর

নবীন শিশিরসিক্ত গুঞ্জনমুখর

স্নিগ্ধবনপথ দিয়ে। আমি অন্যমনে

সঘনপল্লবপুঞ্জ ছায়াকুঞ্জবনে

ছিনু শুয়ে তৃণাস্তীর্ণ তরঙ্গিণীতীরে

বিহঙ্গের কলগীতে সুমন্দ সমীরে।

আমি যাই নাই দেব,তোমার পূজায়--

চেয়ে দেখি নাই পথে কারা চলে যায়।

আজ ভাবি ভালো হয়েছিল মোর ভুল,

তখন কুসুমগুলি আছিল মুকুল-

হেরো তারা সারা দিনে ফুটিতেছে আজি।

অপরাহ্নে ভরিলাম এ পূজার সাজি।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •