তিন


ফুরিয়ে গেল পৌষের দিন;

কৌতূহলী ভোরের আলো

কুয়াশার আবরণ দিলে সরিয়ে।

হঠাৎ দেখি শিশিরে-ভেজা বাতাবি গাছে

ধরেছে কচি পাতা;

সে যেন আপনি বিস্মিত।

একদিন তমসার কূলে বাল্মীকি

আপনার প্রথম নিশ্বসিত ছন্দে

চকিত হয়েছিলেন নিজে,--

তেমনি দেখলেম ওকে।

অনেকদিনকার নিঃশব্দ অবহেলা থেকে

অরুণ-আলোতে অকুণ্ঠিত বাণী এনেছে

এই কয়টি কিশলয়;

সে যেন সেই একটুখানি কথা

তুমিই বলতে পারতে,

কিন্তু না ব'লে গিয়েছ চলে।

সেদিন বসন্ত ছিল অনতিদূরে;

তোমার আমার মাঝখানে ছিল

আধ-চেনার যবনিকা

কেঁপে উঠল সেটা মাঝে মাঝে;

মাঝে মাঝে তার একটা কোণ গেল উড়ে;

দুরন্ত হয়ে উঠল দক্ষিণ বাতাস,

তবু সরাতে পারেনি অন্তরাল।

উচ্ছৃঙ্খল অবকাশ ঘটল না;

ঘণ্টা গেল বেজে,

সায়াহ্নে তুমি চলে গেলে অব্যক্তের অনালোকে।

 

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •